আগামী মৌসুমে যে ৫ ফুটবলার পুনরায় ফিরবেন চেলসিতে

কন্তের হাত ধরে অসাধারণ দুটি মৌসুম পার করার পর চলতি মৌসুমের শুরুতে চেলসি ফুটবল ক্লাবের দায়িত্ব নেন মাউরিসিও সারি। তিনি ইতালিয়ান জায়ান্ট নাপোলিকে বেশ শক্ত হাতেই সামলেছেন। সারির হাত ধরে শুরুটা ভালো হলেও মাঝপথে এসে খেই হারায় চেলসি। একের পর এক পরাজয় আর ড্রয়ের কারণে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষ চার থেকেও একটা সময় ছিটকে পড়ে দলটি। মৌসুমের মাঝামাঝি সময়ে এসে কোচ এবং কর্তারা যখন পরবর্তী মৌসুমের পরিকল্পনা করছিলেন ঠিক তখনি দুঃসংবাদ আসে ফিফার কার্যালয় থেকে।

চেলসির দলবদলে নিষেধাজ্ঞা; Image Source: Metro

ফিফা তাদের দলবদলের নীতিমালা অধ্যাদেশ ১৭ এবং ১৮ এর ‘বি’ অনুযায়ী চেলসিকে দুই বছরের জন্য দলবদলের বাজারে নিষিদ্ধ করে। ফিফার ঘোষণা অনুযায়ী আগামী দুই বছর খেলোয়াড় বিক্রি করলেও নতুন করে কাউকে কিনতে পারবেনা চেলসি। আর এতে করে ধুলিসাৎ হয়ে যায় কর্তৃপক্ষের সকল পরিকল্পনা। কিন্তু এখানেই নাটক শেষ হয়নি।

এডেন হ্যাজার্ড; Image Source: Fb.com

রোনালদোকে বিক্রি করার পর এখন অবধি নতুন কোনো তারকা খেলোয়াড় দলে ভেড়ায়নি টানা তিনবারের চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জয়ী দল রিয়াল মাদ্রিদ। অন্যদিকে, জিনেদিন জিদান পুনরায় কোচের দায়িত্ব নেয়ায় চেলসির প্রধান তারকা এডেন হ্যাজার্ডকে দলে চেয়ে বসেন। হ্যাজার্ডও রিয়ালে যাওয়ার ব্যাপারে ইতোমধ্যেই একাধিক বিবৃতি দিয়েছেন। এতে করে বেশ ভালোভাবেই বোঝা যাচ্ছে আগামী গ্রীষ্মকালীন দলবদলে হ্যাজার্ডকেও হারাতে যাচ্ছে চেলসি।

মাউরিসিও সারি; Image Source: Talksports

দলবদলে নিষেধাজ্ঞা এবং দলের প্রধান তারকার বিদায়ে বেশ শোচনীয় অবস্থায় পড়তে যাচ্ছে চেলসি। কিন্তু এত কিছুর মাঝেও মাউরিসিও সারিকে আশার আলো দেখাচ্ছেন লোনে থাকা খেলোয়াড়েরা। চলতি মৌসুমে চেলসির সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ প্রায় ৩৯ জন ফুটবলার বিভিন্ন ক্লাবে ধারে খেলছেন। মৌসুম শেষে কোচ হয়তো তাদের মধ্য থেকে কাউকে হ্যাজার্ডের পরিপূরক হিসেবে দলে নিবেন। আজকে আলোচনা করা হলো এমনই ৫ জন ফুটবলারকে নিয়ে যারা মৌসুম শেষে আবারো চেলসিতে ফিরতে পারেন। কারণ দলবদলে নিষেধাজ্ঞা থাকায় কোচের নিকট তাদের বিকল্প নেই।

৫. ম্যাসন মাউন্ট

২০০৫ সালে চেলসি একাডেমিতে যোগ দেয়া ম্যাসন মাউন্ট নিঃসন্দেহে এযাবৎকালের গ্র্যাজুয়েটদের মধ্যে অন্যতম সেরা প্রতিভাবান ফুটবলার। ম্যাসন মিডফিল্ডার হলেও উইঙ্গার হিসেবে খেলতে পারদর্শী। তার গোল করার সক্ষমতাও অসাধারণ। ২০১৭ সালে তার নেতৃত্বে ইংল্যান্ড অনূর্ধ্ব-১৯ ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়ানশিপ জেতে। সেবার তিনি টুর্নামেন্টের সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হন।

ম্যাসন মাউন্ট; Image Source: 90Min

বর্তমানে তিনি ডার্বি কাউন্টির হয়ে ধারে খেলছেন। চলতি মৌসুমে এখন অবধি ২৯ ম্যাচ খেলে ৩টি অ্যাসিস্ট এবং ৫টি গোল করেছেন ম্যাসন। বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের মতে মৌসুম শেষে চেলসিতেই ফিরছেন তিনি। কারণ হ্যাজার্ডের বিদায়ে একজন ভালো মানের প্লে-মেকার এবং গোলদাতার অভাবে ভুগবে দলটি। ম্যাসন সবটুকু সামাল দিতে না পারলেও দলকে কিছুটা হলেও সাহায্য করতে পারবেন বলে আশা করা যায়।

৪. ভিক্টর মোজেস

চেলসির সাবেক কোচ অ্যান্তনিও কন্তের অধীনে পর্যাপ্ত খেলার সুযোগ পাওয়া ফুটবলারদের মধ্যে ভিক্টর মোজেস অন্যতম। ২০১৬-১৭ মৌসুমে চেলসির শিরোপা জয়ের ক্ষেত্রেও বিরাট ভূমিকা পালন করেন এই নাইজেরিয়ান উইঙ্গার। কিন্তু চলতি মৌসুমের শুরুতে দলের দায়িত্ব নেয়ার পর মোজেসকে পর্যাপ্ত সুযোগ দিবেন না বলেই ইঙ্গিত করেন সারি। যার ফলে ৬ মাসের জন্য তুর্কি ক্লাব ফেনারবাহচেতে যোগ দেন মোজেস।

ভিক্টর মোজেস; Image Source: 90Min

কিন্তু মৌসুমের মাঝামাঝি সময় অবধি পর্যাপ্ত সুযোগ না পাওয়ায় আবারো চেলসিতে ফেরেন মোজেস। জানুয়ারি মাসে তার সঙ্গে চুক্তির মেয়াদ আরো ৬ মাস বাড়ানোর ঘোষণা দেয় ফেনারবাহচে। গত জানুয়ারি থেকে এখন অবধি মাত্র ৬টি ম্যাচ খেলে ২টি গোল এবং ১টি অ্যাসিস্ট করেছেন মোজেস। ফেনারবাহচের সঙ্গে তার চুক্তির মেয়াদ শেষ হলে আবারো চেলসিতে ফিরতে হবে তাকে। অন্যদিকে, ফর্মহীন হলেও নিষেধাজ্ঞার কারণে তাকে বিক্রিও করতে পারবেনা চেলসি।

৩. তিয়েমো বাকায়োকো

২০১৭ সালে বেশ ঘটা করেই বাকায়োকোকে মোনাকো থেকে দলে ভেড়ায় চেলসি। আর তাকে কিনতে গিয়ে মোটামুটি অনেক অর্থ ব্যয় করে দলটি। কিন্তু চেলসিতে প্রথম মৌসুমে নিজেকে প্রমাণ করতে ব্যর্থ হন এই ফরাসি ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার। অ্যান্তনিও কন্তে তাকে অনেক সময় ডিফেন্ডার হিসেবেও খেলিয়েছেন। তার পরেও কোচ এবং ম্যানেজমেন্টের মন জয় করতে ব্যর্থ হন বাকায়োকো।

তিয়েমো বাকায়োকো; Image Source: 90Min

অতঃপর এজেন্ট এবং ম্যানেজমেন্টের সঙ্গে বৈঠকের পর তার দল ছাড়ার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত হয়। যদিও পরবর্তীতে বিভিন্ন জটিলতায় তাকে বিক্রি করতে না পেরে ধারে এসি মিলানে পাঠায় কর্তৃপক্ষ। চলতি মৌসুমে এসি মিলানের হয়ে দলীয় সেরা পারফরম্যান্স উপহার দিয়েছেন বাকায়োকো। আর সেই সুবাদে হয়তো মৌসুম শেষে আবারো চেলসিতে ফিরবেন তিনি।

২. ট্যামি আব্রাহাম

২১ বছর বয়সী এই স্ট্রাইকার নিঃসন্দেহে বর্তমান সময়ের সেরা উদীয়মান তারকাদের মধ্যে অন্যতম। ২০১৬-১৭ মৌসুমে প্রথমবারের মতি ব্রিটলের হয়ে ধারে খেলেন আব্রাহাম। ঠিক তখনি নিজেকে প্রমাণ করেন তিনি। সেবার দ্বিতীয় বিভাগে ৪০ ম্যাচে ২৩ গোল করেন এই ইংরেজ স্ট্রাইকার। চলতি মৌসুমে তিনি খেলছেন দ্বিতীয় বিভাগের আরেক দল অ্যাস্টন ভিলার হয়ে। সেখানেও ধারাবাহিকভাবে গোল করে যাচ্ছেন আব্রাহাম। এখন অবধি ৩৫ ম্যাচ খেলে ২৩ গোল এবং ২টি অ্যাসিস্ট করেছেন তিনি।

ট্যামি আব্রাহাম; Image Source: 90Min

অভিজ্ঞতার দিকদিয়ে হয়তো তিনি পুরোপুরি পরিপক্ব নন। কিন্তু হ্যাজার্ড এবং মোরাতার সঙ্গে হিগুয়েনের বিদায়ে চেলসির আক্রমণভাগে যে শূন্যতা তৈরি হবে তা সামাল দিতে আব্রাহামের বিকল্প নেই কোচ মাউরিসিও সারির হাতে। সেই হিসেবে বলা যায় মৌসুম শেষে তার দলে ফেরা অনেকটাই নিশ্চিত।

১. মিচি বাতশুয়াই

আগামী মৌসুমের শুরুতে যারা চেলসিতে ফিরতে পারেন তাদের মধ্যে মিচি বাতশুয়াই অন্যতম। এক কথায় তার ফেরা অনেকটাই নিশ্চিত। ২০১৬ সালে খুব অল্প বয়সে চেলসিতে যোগ দিলেও দলে তেমন সুযোগ পাননি বাতশুয়াই। অতঃপর তিনি ধারে খেলেছেন বরুশিয়া ডর্টমুন্ড, ভ্যালেন্সিয়ার মতো ক্লাবে। বর্তমানে ক্রিস্টাল প্যালেসের হয়ে খেলছেন ২৫ বছর বয়সী এই বেলজিয়ান স্ট্রাইকার।

মিচি বাতশুয়াই; Image Source: 90Min

গত বছর ইনজুরির কারণে রাশিয়া বিশ্বকাপে খেলতে পারেননি বাতশুয়াই। এরপর অবশ্য বেশ ভালোভাবেই ইনজুরি কাটিয়ে ফর্মে ফিরেছেন তিনি। কিন্তু বার বার দল পরিবর্তনের কারণে মানিয়ে নিতে বেশ সময় নেন বাতশুয়াই। তবে মৌসুম শেষে চেলসিতে ফিরে দলে নিয়মিত হওয়ার ব্যাপারে বেশ আত্মবিশ্বাসী তিনি। কারণ মোরাতা এবং হিগুয়েনের বিদায়ের পর কোচের পছন্দের তালিকায় তার নামটি সবার উপরে থাকবে।

Featured Image: Marca

The post আগামী মৌসুমে যে ৫ ফুটবলার পুনরায় ফিরবেন চেলসিতে appeared first on Khela.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *